প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২৪ এপ্রিল ২০১৯

মাননীয় প্রতিমন্ত্রী

মোঃ জাকির হোসেন
মাননীয় প্রতিমন্ত্রী
প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রনালয়

 

মোঃ জাকির হোসেন ১৯৬৬ সালের ০২ জুলাই কুড়িগ্রাম জেলার রৌমারী উপজেলায় জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতা মৃত সামসুল হক এবং মাতা মৃত জুলেখা বানু। তাঁর স্ত্রী মোছাঃ সুরাইয়া সুলতানা।

 

মোঃ জাকির হোসেন রাজশাহী শিক্ষাবোর্ডের অধীনে থানাহাট এ.ইউ উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পাশ করেন। কুড়িগ্রামের রাজাহাট মীর ইসমাইল হোসেন ডিগ্রি মহাবিদ্যালয় থেকে এইচএসসি এবং লালমনিরহাট হাতিবান্ধা আলিমুদ্দিন ডিগ্রি কলেজ থেকে বিএ পাশ করেন। এরপর রংপুর আইন মহাবিদ্যালয় থেকে এলএলবি ডিগ্রি অর্জন করেন।

 

ছাত্র জীবন থেকেই তিনি রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত ছিলেন। তিনি ১৯৭৭ সালে ছাত্রলীগে যোগদান করেন। ১৯৮১ সালে কুড়িগ্রাম কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি নির্বাচিত হন। ১৯৮২ সালে কুড়িগ্রাম জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৮৩-১৯৮৫ সালে রৌমারী উপজেলা যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা আহব্বায়ক ও সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৮৭-৯০ পর্যন্ত তিনি রৌমারী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৯০ সালে রৌমারী উপজেলা শাখা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হিসাবে টানা ২০০৮ সাল পর্যন্ত দীর্ঘ ১৭ বছর দায়িত্ব পালন করেন। ২০০৮-২০১৫ পর্যন্ত রৌমারী উপজেলা আওয়ামীলীগের ১নং সহ-সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৫ সাল হতে বর্তমান পর্যন্ত রৌমারী উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি হিসেবে অধিষ্ঠিত আছেন।

 

জনাব মোঃ জাকির হোসেন ২০০৮ সালে ২৮-কুড়িগ্রাম ৪ আসনে আওয়ামীলীগ থেকে মনোনয়ন  পেয়ে ৯ম জাতীয় সংসদের সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হন। তিনি নবম জাতীয় সংসদে শ্রম, জনশক্তি ও কর্মসংস্থান এবং পানি সম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৮ সলের ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ২৮-কুড়িগ্রাম ৪ আসনে বিপুল ভোটে (রৌমারী-চিলমারী-রাজিবপুর) ২য় বার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। মোঃ জাকির হোসেন এম.পি ২০১৯ সালের ৭ জানুয়ারি, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব গ্রহণ করেন।

 

রাজনীতির শুরু থেকেই তিনি সমাজ সেবা ও উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডের সাথে জড়িত আছেন। তিনি নিজ এলাকায় বহু স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠায় সহায়তা করেছেন।

 

তিনি বাংলার পাশাপাশি ইংরেজি ভাষায় দক্ষ। পারিবারিক জীবনে তিনি এক পুত্র ও এক কন্যা সন্তানের জনক। জনসেবা ও এলাকার সার্বিক উন্নয়ন কর্মকান্ডের সাথে তিনি ওতপ্রোতভবে সম্পৃক্ত। বই পড়া ও খেলাধুলা তার শখ।



Share with :

Facebook Facebook